বেরোবিতে পতাকা বিকৃতি: সেই শিক্ষকদের দুঃখ প্রকাশ

বিজয় দিবসে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্বে থাকা কিছু শিক্ষকদের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা অবমাননা ও বিকৃতি করে প্রদর্শনের ঘটনার দেশব্যাপী সমালোচনার পর উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দুঃখ প্রকাশ করেন অভিযুক্ত শিক্ষকরা।

শনিবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে অভিযুক্ত শিক্ষকরা বলেন, পতাকা অবমাননার ঘটনায় আপাতদৃষ্টিতে পতাকাসদৃশ মনে হলেও এটি আনুষ্ঠানিক কোনো পতাকা ছিলো না। তাছাড়া ছবি তোলার সময় শিক্ষকবৃন্দ এটিকে ভালোভাবে খেয়াল না করেই সেখানে দাঁড়িয়েছিলেন। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আয়োজিত অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা নিয়ে স্বাধীনতা স্মারকে কোনো কর্মসূচি ছিলো না।

স্বাধীনতা স্মারক প্রাঙ্গণে শিক্ষকদের তোলা কয়েকটি ছবিকে কেন্দ্র করে দেশব্যাপী সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে বিষয়টি নিয়ে দেশবাসীর যে নেতিবাচক মনোভাব তৈরি হওয়ায় তারা লজ্জিত ও মর্মাহত বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে।

এদিকে উপস্থিত শিক্ষকরা কেউই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে পতাকা অবমাননার মতো এই ঘটনা ঘটাইনি বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। তবে ছবিতে অনেক শিক্ষককে ছবি তোলার উদ্দেশ্যে পোজ দিতে দেখা হলেও মাত্র কয়েকজন শিক্ষক দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান, অর্থ ও হিসাব দফতরের পরিচালক ও গণিত বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. আর এম হাফিজুর রহমান, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির পরিচালক ও বাংলা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. পরিমল চন্দ্র বর্মণ, সহকারি প্রক্টর ও মার্কেটিং বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মাসুদ উল হাসান, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শামীম হোসেন, রসায়ন বিভাগের প্রভাষক মোস্তফা কাইয়ুম শারাফাত, প্রভাষক মো. রহমতুল্লাহ।

তবে পতাকা বিকৃত করে ছবি তুলে ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা যায় অনেক শিক্ষককেই। তাদের মধ্যে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হোসেন, সহকারি প্রক্টর ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সহকারি প্রভোস্ট প্রদীপ কুমার সরকার, পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষক ড. রশিদুল ইসলাম, শাহজামান তপু, চার্লস ডারউইন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সহকারি প্রোভোস্ট ও ইতিহাসের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক রাম প্রসাদ, পদার্থবিজ্ঞানের প্রভাষক আবু সাইদ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এমদাদুল হককেও দেখা যায়।

এদিকে পতাকা অবমাননার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকারি দলীয় শিক্ষকদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু পরিষদ, নীল দল, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংগঠন অধিকার সুরক্ষা পরিষদসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সুশীলরা অভিযুক্ত শিক্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *